Templates by BIGtheme NET

আলো নাটকের জন্য পু‌লি‌শের সম্মাননা পেলেন মেহজাবিন

প্রতি‌দিন বাংলা‌দেশ, বি‌নোদন:
কর্মক্ষেত্রে একজন নারী সার্জেন্টের ঘাত প্রতিঘাত, প্রতিবন্ধকতা নিয়ে গেল ঈদে আলো শিরোনামের একটি নাটক নির্মাণ করেছিলেন নির্মাতা মাহমুদুর রহমান হিমি। নাটকটির গল্প লেখার পাশাপাশি ছোট পর্দার তারকা অভিনেত্রী মেহজাবীন চৌধুরী নারী সার্জেন্ট চরিত্রে অভিনয় করেন।
বাবার স্বপ্ন পূরণ করতেই ট্রাফিক পুলিশে যোগ দেন আলো। নারী হওয়ার কারণে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে নিয়মিত শারীরিক ও মানসিক নানা সমস্যার মুখোমুখি হন তিনি। নারী ট্রাফিক পুলিশের বুথের পাশে কোনো টয়লেটের ব্যবস্থা নেই। পাবলিক টয়লেটে গিয়ে হেনস্তা হতে হয়। নারী হওয়ায় বাজে মন্তব্য করেন মাতাল ট্রাক চালক। তারপরেও পেশাকে ভালোবেসে কাজ করে যান আলো। দেশের নারী ট্রাফিক পুলিশদের নিয়ে এমন সাহসী একটি গল্প লিখে পুরস্কৃত হলেন অভিনেত্রী মেহজাবীন চৌধুরী ও নাটকটির নির্মাতা মাহমুদুর রহমান হিমি।
গত ৪ দিন আগে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ থেকে ফোনে জানানো হয়, নাটকের টিমকে পুরস্কার দেওয়া হবে। নাটকটি প্রচারের পর থেকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অনেক কর্মকর্তা তাদের ফোনে ধন্যবাদ জানান।
নারী পুলিশদের এমন সমস্যা দেখানোর জন্য ভক্ত এবং সহকর্মীরা অনেকেই সাধুবাদ জানান।
দেশের নারী ট্রাফিক পুলিশদের নিয়ে এমন সাহসী গল্প লেখা ও নাটকটি নির্মাণের জন্য অভিনেত্রী মেহজাবীন চৌধুরী ও নির্মাতা মাহমুদুর রহমান হিমিকে পুরস্কৃত করেছে বাংলাদেশ পুলিশের উইমেন্স নেটওয়ার্ক (বিপিডব্লিউএন)।
বৃহস্পতিবার তাঁদের  হাতে সম্মানসূচক ক্রেস্ট তুলে দেন বাংলাদেশ উইমেন্স নেটওয়ার্ক (বিপিডব্লিউএন) এর সভাপতি ও ডিআইজি (প্রটেকশন অ্যান্ড প্রটোকল), স্পেশাল ব্রাঞ্চ আমেনা বেগম।
মেহজাবীন চৌধুরী বলেন, একটি কাজ তখনই সার্থক হয়, যখন দর্শক সেই কাজ দেখেন। তাঁদের ভালো লাগা প্রকাশ করেন এবং কাজটি নিয়ে নানান রকম ফিডব্যাক দেন। এই কাজের জন্য প্রত্যাশার চেয়েও বেশি ফিডব্যাক পেয়েছি। পুলিশ ডিপার্টমেন্টের প্রায় সবাই নাটকটি দেখেছেন, প্রশংসা করেছেন। তাঁরা চান, ভবিষ্যতে তাঁদের না বলা গল্প, ত্যাগ নাটকের গল্পে উঠে আসুক। আমি চেষ্টা করব, এই ধরনের কাজ আরও করতে।
নাটকটি লেখার সময় কি ভেবেছিলেন এমন একটা জায়গা থেকে স্বীকৃতি পাবেন? মেহজাবীন চৌধুরী বলেন, পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে জড়িত নারীদের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান থেকে গত ঈদের জন্য আলো নাটকটি লিখেছিলাম। তখনো ভাবিনি, নাটকটি সাধারণ দর্শকদের ভালোবাসা অর্জনের পাশাপাশি যাঁদের জন্য লেখা, তাঁদের মনকেও এভাবে স্পর্শ করবে। যাঁদের জন্য আমরা কাজ করি, তাঁদের কাছ থেকে সমর্থন, উৎসাহ, ভালোবাসা পাওয়াটা আমাদের জন্য আশীর্বাদ। এটা আমাকে আরও ভালো নাটক লিখতে উৎসাহিত করবে। এটা আমার জন্য অন্য রকম খুশির সংবাদ।
মেহজাবীন জানান, ২০১৯ সালে গাড়ি নিয়ে জ্যামে আটকে থাকার সময় একটি ঘটনা দেখে আলো নাটকের গল্পের প্লট তাঁর মাথায় আসে।
নির্মাতা মাহমুদুর রহমান হিমি বলেন, একজন নির্মাতার সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থাকে। নারী পুলিশদের জীবনটা কিছুটা হলেও পর্দায় তুলে ধরতে পেরেছি। যে সচেতনতা তৈরির চেষ্টা করেছিলাম, সেটা একটু হলেও সবাইকে স্পর্শ করেছে। এই পুরস্কার আমার কাছে অনেক বড় পাওয়া। নাটকে আরও অভিনয় করেছেন আহসানুল হক মিনু, মনোজ প্রামাণিক, ইকবাল হোসেন প্রমুখ। নাটকটি আরটিভিতে প্রচার হয়।
নাটকে মেহজাবীন চৌধুরী ছাড়াও অভিনয় করেছেন আহসানুল হক মিনু, মনোজ প্রামাণিক, ইকবাল হোসেন প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*